JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
logo shaistaganj
,
sanvi stor
সংবাদ শিরোনাম :
«» ব্যানার ফেস্টুন অপসারণের কাজ করছে হবিগঞ্জ পৌরসভা «» মাধবপুরে সংঘর্ষে আহত ৬, দোকানে আগুন «» হবিগঞ্জ-৩ আসনের প্রার্থীতা নিয়ে গুজবে কান না দেয়ার আহবান «» শাহজালাল (র.) মাজার জিয়ারত শেষে নির্বাচনী এলাকায় বিএনপির একক প্রার্থী সৈয়দ একরামুজ্জামান সুখন «» শায়েস্তাগঞ্জে শীতের আগমনে ব্যস্ত সময় পার করছেন লেপ তোষকের কারিগররা «» শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় নবনিযুক্ত নির্বাহী অফিসার এস, এম ফেরদৌস ইসলাম এর যোগদান «» বাহুবলে ট্রাক চাপায় স্কুল ছাত্রের মৃত্যু «» জন্মদিনের ভালোবাসায় সিক্ত : আমি কৃতজ্ঞ… «» হবিগঞ্জবাসী ফের অর্থমন্ত্রী পাবার স্বপ্নে বিভোর «» হবিগঞ্জে পুলিশের অভিযানে ৩৬ সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

আজমিরীগঞ্জে বাছির হত্যা মামলায় ২ জনের মৃত্যুদণ্ড

5555

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : আজমিরীগঞ্জে বাছির হত্যা মামলায় দুইজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার দুপুরে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এসএম নাসিম রেজা এ রায় দেন। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, আজমিরীগঞ্জ উপজেলার শিবপাশা গ্রামের আব্দুল হাই চৌধুরীর ছেলে সাবিউর রহমান চৌধুরী ও রমিজ মিয়ার ছেলে গাজিউর চৌধুরী। রায় ঘোষণাকালে সাবিউর আদালতে উপস্থিত ছিলেন। অপর আসামি গাজিউর ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন। এ মামলায় অপর ১১ জনকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালের ৯ জুন মোবাইল ফোনে প্রতিবেশী বদিউজ্জামান চৌধুরীর ছেলে বাছির মিয়াকে ডেকে নেন আসামিরা। এরপর থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি।
এ ঘটনায় ১৩ জুন আজমিরীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়। ২৪ জুন বাছিরের বড় ভাই জিলু মিয়া চৌধুরী বাদী হয়ে ১৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। ওই দিনই মামলার আসামি সাবিউরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে নাইয়ারখারা বিলের পাশের জমিতে মাটি চাপা দেয়া অবস্থায় বাছির মিয়ার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সাবিউর ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পূর্ব-শত্র“তার জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে আদালতকে জানান তিনি।

পরে তদন্ত শেষে একই বছরের ১৫ ডিসেম্বর ১৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশ। মামলায় ১৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে গতকাল বুধবার রায় দেন বিচারক। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর মো. আব্দুল আহাদ ফারুক।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *