JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
logo shaistaganj
,
sanvi stor
সংবাদ শিরোনাম :
«» চুনারুঘাটে শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ালেন পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ উল্ল্যাহ «» বাহুবলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত «» বানিয়াঙ্গে চলছে যত্রতত্র গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি : নিরাপত্তা ঝুঁকিতে সাধারণ মানুষ «» আলোর ফেরিওয়ালার সেজে টমটম গাড়িতে মাইক নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ দিচ্ছেন হবিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি «» শীতে কাঁপছে শায়েস্তাগঞ্জের ছিন্নমূল মানুষ «» মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সাবেরা ছালেক(হ্যাপী)গণসংযোগ «» বাহুবলে নবনির্বাচিত এমপি অালহাজ্ব শাহনওয়াজ মিলাদ গাজীকে গণ-সংবর্ধনা «» হবিগঞ্জে সাইফ টেকের অনুর্ধ্ব-২০ ফুটবল টুর্নামেন্টের খেলোয়ার বাছাই «» হবিগঞ্জে ক্রিকেটার ইমরুল কায়েসকে সংবর্ধনা «» রোটারী ক্লাব অব নবীগঞ্জের উদ্যোগে সেনেটারী টয়লেট স্থাপনের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন

ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার কৃষ্ণমূর্তিকার হবিগঞ্জ সফর

Sylhet Indian As.. Comm.. Krisna Murtica & Tuhin Pic-10.1.2019-(A)

রফিকুল হাসান চৌধুরী তুহিন ॥ বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেটের ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার এল এন কৃষ্ণমূর্তিকা আকস্মিক হবিগঞ্জ সফর করেছেন। এদিকে তার এমন সফর নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন সহ সাধারন মানুষের মাঝে নানা আলোচনা ও কৌতুহল সৃষ্টি হলেও কমিশনার কৃষ্ণমূর্তিকা তার প্রতিক্রিয়ায় জনকন্ঠকে বলেছেন, এটি তার ব্যক্তিগত সফর।

তবে এই সফরকালে তিনি জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন পরিদর্শন ও সংশ্লিস্ট সভা কক্ষে সদ্য বিদায়ী জেলা কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মোহাম্মদ আলী পাঠান, ডেপুটি কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা গৌর প্রসাদ রায়, সদর উপজেলা কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস শহীদ সহ সকল মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে পরিচিতি সহ কথোপকথন করেন। এসময় তিনি তার বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে একত্রিত ও পরিচিত হতে পেরে নিজেকে তিনি ধন্য মনে করছেন। তিনি আরও বলেন, ভারত সরকার বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের পাশে রয়েছে আগামীতেও থাকবে।

শিক্ষা-চিকিৎসা সহ নানাবিধ সহযোগিতা মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যানে ভারত সরকারহযোগীতা চালিয়ে যাবে। এছাড়া তিনি মুক্তিযুদ্ধের সূচনা স্থল হবিগঞ্জের তেলিয়াপাড়া ডাকবাংলো প্রাঙ্গনে আগামী ৪ঠা এপ্রিল মহা-সমাবেশে আসার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন এমন একটি জেলার মূল শহরে আসতে পেরে তিনি খুবই খুশী বলেও জানান। তিনি ৭১’এর স্মৃতি বিজড়িত কিছু এতিহাসিক চিত্রও দেখেন। জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ইউনিটের সদ্য বিদায়ী কমান্ডার এডভোকেট পাঠানও ৭১’সালে স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালে এবং পরবর্তী সময়ে মুক্তিযোদ্ধাদের পাশে দাড়ানোর জন্য ভারত সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে তিনি হবিগঞ্জ রামকৃষ্ণ মিশনেও যান এবং অধ্যক্ষ সহ তৎসংশ্লিস্ট সকলের সাথে কিছু বিষয় নিয়ে একান্তে কথাও বলেন।

এছাড়াও তিনি হবিগঞ্জের শিল্পী কলাকুশলীদের সাথেও পরিচিত হন এবং নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির আহবায়ক সাংবাদিক রফিকুল হাসান চৌধুরী তুহিন।

এদিকে কমিশনার হবিগঞ্জ আসলেও স্থানীয় জেলা বা পুলিশ প্রশাসনের কাউকে আগে-ভাগে অবহিত না করলেও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অল্প সময়ের ব্যবধানে তা জানতে পেরে তার নিরাপত্তায় পুলিশ কর্তারা বেশ চিন্তিত হয়ে উঠেন। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহিদুর রহমান ১০/১৫ মিনিটের মধ্যেই ফোর্স নিয়ে ছুটে যান জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে ভবনে এবং সার্বক্ষণিক তার নিরাপত্তা জোরদার করেন। বিকেল সোয়া ৩ টার দিকে তিনি সিলেটের উদ্দ্যেশে হবিগঞ্জ ত্যাগ করেন। তবে কোন প্রটোকল না নিয়ে কৃষ্ণমূর্তিকা এমনিভাবে আসা নিয়ে নানা পেশার সাধারন মানুষের মাঝে কৌতুহল তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *