শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৪৫ অপরাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিদ্দিক আলীর বীরত্বের গল্প

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২১

সৈয়দ হাবিবুর রহমান ডিউক, শায়েস্তাগঞ্জ থেকে:
শিক্ষিত-অশিক্ষিত, কর্মজীবী-বেকার, নারী-পুরুষ ও ধর্মীয় পরিচয় নির্বিশেষে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের মানুষ আত্মপরিচয় ও মর্যাদার প্রশ্নে দেশের স্বাধীনতার সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন। দীর্ঘ নয় মাস এক ভয়ানক রক্তক্ষয়ী জনযুদ্ধের পরিণতি স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ।

এ যুদ্ধে আমরা ত্রিশ লাখ স্বজাতিকে হারিয়েছি। কয়েক লক্ষ মা-বোন তাদের ইজ্জত ও সম্ভ্রমহানী হয়েছেন।

যেসব মুক্তিকামী যোদ্ধা বিজয়ের পতাকা উড়িয়ে আমাদের একটি স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছেন সেইসব মুক্তিযোদ্ধারা আমাদের শ্রেষ্ঠ সন্তান, আমাদের নমস্য।

কেবল বিশেষ সময় নয় মুক্তিযোদ্ধারা তাদের জীবনে মরণে আমাদের কাছে পূজনীয় মর্যাদায় অধিষ্ঠিত। আজকে আপনাদের কাছে তুলে ধরব হবিগঞ্জ সদর উপজেলার একজন মুক্তিযোদ্ধার মুখের গল্প।

চট্টগ্রামের রামগড় ও ভারতের সাবরুম যুদ্ধে বীরত্বের প্রমাণ দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: ছিদ্দিক আলী ।
তিনি হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বাগুনীপাড়ার মৃত কলিম উল্লার ৩য় ছেলে মোঃ ছিদ্দিক আলী । বিজয়ের মাসে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সিদ্দিক আলীর সাথে একান্ত আলাপে উঠে আসে যুদ্ধকালীন নানান স্মৃতির প্রতিচ্ছবি ।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: ছিদ্দিক আলী জানান, একাত্তরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ ই মার্চের ভাষণ শোনার পর মনের স্পন্দন জাগ্রত হয়, যা পরবর্তীতে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিতে অনুপ্রেরণা জোগায়।

তখনকার সময় তিনি ছিলেন চট্টগ্রাম ষোলশহরের সেনা ক্যাম্পে, সেখান থেকে ১ নং সেক্টর প্রধান জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে ২৫ মার্চ রাত থেকে চট্টগ্রামের কালুরঘাট , রামগড়সহ বিভিন্ন স্থানে পাকসেনাদের সাথে লড়াই করে ভারতের হরিণায় ক্যাম্প করে ১ মাস অবস্থান নেন ।
পরে শিলং গুয়াহাটিসহ ভারতের বিভিন্ন অবস্থান করে ময়মনসিংহ ও রংপুরের সীমান্ত এলাকার কামালপুর ও রউমারিতে লড়াই করে আবারও ভারতের করিমগঞ্জে যান। সেখান থেকে জকিগঞ্জ দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে সিলেটের টিলাগড়সহ বিভিন্ন স্থানে সম্মুখ সমরে লড়াই করেন ।

এরমধ্যে সিলেটের টিলাগড় ও জকিগঞ্জ এবং কানাইঘাটের মাঝখানের আটগ্রামে লড়াইয়ে অনেক পাকসেনা নিহত হয় । এছাড়া পাকদের সাথে তুমুল লড়াই হয়েছে চট্টগ্রামের রামগড় ও ভারতের সাবরুমে । এসব লড়াইয়ে তিনি তার শৌকজ বীরত্বের প্রমাণ দেন । বিজয় নিয়ে ১৬ ডিসেম্বর তিনি শ্রীমঙ্গল সেনাবাহিনী ক্যাম্পে আসেন । সেনাবাহিনীর কর্পোরাল পদে প্রায় ১৮ বছর দায়িত্ব পালন শেষে তিনি ১৯৮৯ সালের ২৫ মার্চ অবসরে আসেন ।
বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: ছিদ্দিক আলী কখনো ছেড়া প্যান্ট, কখনো লুঙ্গি আর টুপি কিংবা হুজুরের বেশ ধরে যুদ্ধ করতে হয়েছে। আমার শরীরে বেশ কিছু দাগ স্মৃতি হিসেবে রয়েছে। হাত পা দিয়ে হামাগুড়ি দিতে দিতে জীবন বাচাতে কখনো কখনো পাড়ি দিতে হয়েছে পাহাড়। পায়ে ও কনুইতে এখনো কালো দাগের চিহ্ন রয়েছে।

অবসর গ্রহনের পরে বাগুনিপাড়ার নিজ গ্রামে ব্যবসার পাশাপাশি কৃষিকাজে নিজেকে নিয়োজিত করেন। সেই থেকে এভাবেই চলছে তার জীবন। ব্যাক্তিগত জীবনে তার দুই ছেলে ও তিন মেয়ে রয়েছে। এরই মধ্যে তিন মেয়ের বিয়ে হয়েছে। তার দুই ছেলের একজন মনসুর আহমেদ শিপন যিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত ও অন্যজন আলী আহমেদ আলী(আলী) যিনি বাংলাদেশ পুলিশে কর্মরত রয়েছেন।

তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ দেখতে চান । আর জাতির জনকের ইচ্ছা পূরণে কাজ করায় তার সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ।

বয়সের ভারে নুয়ে পড়লে ও সবকিছুর পরে তার আর চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই, ছেলে সন্তান নিয়ে সুখেই আছেন। বিজয়ের মান ডিসেম্বর এলেই সেইসব প্রাণগাথাঁ সুখ দু:খের স্মৃতি মনে বার বার উঁকি দেয়, তখনই মনে মনে বেজেঁ উঠে জাতীয় সঙ্গীত আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!