রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০৩:৩৪ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

শায়েস্তাগঞ্জে আউশের আবাদ নিয়ে কৃষকরা হতাশ

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ৮ জুলাই, ২০২৪

সৈয়দ হাবিবুর রহমান ডিউক, শায়েস্তাগঞ্জ :

শায়েস্তাগঞ্জে একটানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে আউশ ধানের বীজতলা, এ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছেন প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকরা। উপজেলার নানা জায়গায় অতি বৃষ্টির কারণে বীজতলা ডুবে গিয়ে পচন ধরেছে চারায়, ফলে কৃষকদের চেহারায় পড়েছে চিন্তার ভাজ।

ঈদের পর থেকেই শায়েস্তাগঞ্জে থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে, টানা বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতার কারণে শায়েস্তাগঞ্জের সর্বোত্রই আউশের বীজতলা পানিতে তলিয়ে রয়েছে। এতে আউশের বীজতলা নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয় কৃষকেরা। আউশ চাষে নতুন করে বীজতলা তৈরির সময় নেই, এতে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে আউশের আবাদ।

শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নের সুতাং এলাকার কৃষক লিটন মিয়া জানান, তিনি ২বিঘা জমিতে চারা বপন করেছিলেন,বৃষ্টির কারণে কিছু বীজ ধুয়ে চলে গেছে, আর পানিতে তলিয়ে থাকার কারণে বেশ কিছু চারা পচে গিয়েছে। এখনো বৃষ্টির শেষ নেই, নতুন করে আবার জমি আবাদ করে বীজতলা তৈরির সময় নেই, তাই তিনি আসছে আউশ ধান কিভাবে জমিতে রোপন করবেন এ নিয়ে চিন্তিত আছেন। তবে, তিনি আগামী সপ্তাহে আমনের বীজ ফেলবেন।

একই উপজেলার সুরাবই গ্রামের কৃষক হাসান মিয়া জানান, আমি ১বিঘা জমিতে আমনের চারা ফেলিয়েছি, বৃষ্টিতে তলিয়ে থাকার কারণে চারাগুলো বড় হচ্ছে না, বেশ কিছু চারা পানির তলে থাকার কারণে লালচে আকার ধারণ করে আছে, এই চারা দিয়ে তিনি কিভাবে জমি রোপন করবেন এ নিয়ে আশংকায় আছেন।

এদিকে, ঠিকমত রোদ না থাকার কারণে, অনেকে আবার চারা ফেলে ও রোপন কর‍তে পারছেন না, পাশাপাশি বীজের বয়স বেশি হয়ে গেলে জমিতে ফলন কমে যায়, এছাড়াও জমিতে দেরিতে আবাদ হলে রোগবালাই বেশি হয়। এ অবস্থায় আমন আবাদে কৃষকের সার ও কীটনাশক ও প্রয়োজনের চেয়ে বেশি লাগবে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শায়েস্তাগঞ্জে অধিকাংশ ফসলের জমিই পানিতে ডুবে আছে, পানি নি:ষ্কাশনের ব্যবস্থা করার মত সময় বৃষ্টি যেন কাউকেই দিচ্ছে না, তাই আসছে মৌসুমে ফসল নিয়ে সবাই দ্বিধাদ্বন্দে আছেন।

এ ব্যাপারে কথা হয়, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মশিউর রহমানের সাথে তিনি দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জকে জানান, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় আউশের চারায় খুব বেশি একটা ক্ষতি হয়নি, যে জায়গায় পানি বেশি ছিল, পানি অনেকাংশেই নেমে এসেছে। উপজেলা কৃষি তথ্যমতে এ পর্যন্ত আউশ ধানের বীজতলার ১৮.২ হেক্টর জমির ক্ষতি হয়েছে। আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে ২০০ জন কৃষককে ৫ কেজি বীজ ও ১০ কেজি পিএইচপি সার ও ১০ কেজি ইউরিয়া সার সরকারি প্রণোদনা হিসেবে বিতরণ করব।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!