সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০১:১৯ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

নবীগঞ্জ পৌর নির্বাচনের ৫ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন চুড়ান্ত যাচাই-বাচাই শেষ

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৫

৫৪৭৮সানিউর রহমান তালুকদার, নবীগঞ্জ থেকে॥ নবীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়ন চুড়ান্ত যাচাই-বাচাই শেষ। এবার মেয়র পদে ৫ জন, সাধারন কাউন্সিলর পদে ৪১ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে  ৯জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

 

তারা হলফনামায় আয়-ব্যয়, সম্পদের বিবরণ,শিক্ষাগত যোগ্যতাসহ বিস্তারিত তথ্য নির্বাচন কমিশনে দাখিল করেছেন। এর মধ্যে আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি থেকে মনোনিত ৩ দলের ৩ জন। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন ২ জন। প্রত্যেক প্রার্থীই নোটারি পাবলিক করে তাদের সকল তথ্য দিয়ে হলফনামা দাখিল করেছেন নির্বাচন কমিশনে। আর এসব প্রার্থীর হলফনামা পর্যালোচনা করে দেখা যায় বেশীর ভাগ প্রার্থীই স্বাক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন। স্বাক্ষর জ্ঞান স ম্পন্ন প্রার্থীদের নিয়ে চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা। এমন প্রার্থীদের ভোট প্রদানে ভোটারদের মধ্যে শুরু হয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।
হলফনামা সূত্রে জানাযায়, আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম চৌধুরীর শিক্ষাগত যোগ্যতা এম.এ পাস। বিএনপির প্রার্থী আলহাজ¦ ছাবির আহমদ চৌধুরী স্বাক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন। জাতীয় পার্টির মাহমুদ চৌধুরী এইচ.এস.সি পাস। স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রবাসী জাহাঙ্গীর রানা বি.এস.সি পাস। জুবায়ের চৌধুরী স্বশিক্ষিত। শিক্ষায় আওয়ামীলীগ প্রার্থীর চেয়ে পিছিয়ে থাকলেও অর্থ, সম্পদ ও মামলায় এগিয়ে আছেন আছেন বিএনপির প্রার্থী।
আওয়ামীলীগ প্রার্থী তোফাজ্জল ইসলাম ৩ বারের নির্বাচিত বর্তমান মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগ কমিটির সদস্য। আর ছাবির আহমদ ৩ বারের প্যানেল মেয়র ও পৌর বিএনপির সভাপতি।
আওয়ামীলীগের প্রার্থী তোফাজ্জল ইসলাম হলফনামায় নিজেকে শিক্ষক উল্লেখ করেছেন। তিনি নবীগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক। তোফাজ্জল ইসলামের কৃষিখাত থেকে বার্ষিক আয় ১০হাজার টাকা, পেশা (শিক্ষকতা) থেকে বার্ষিক আয় ২ লক্ষ ৭৫ হাজার ৬শত ৫০টাকা, নবীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হিসেবে বার্ষিক সম্মানী ভাতা পান ২লক্ষ ৪০ হাজার টাকা। এছাড়াও নগদ আছে ৫০হাজার টাকা, ব্যাংকে আছে ১০হাজার টাকা। স্ত্রীর নামে আছে ২০ ভরি স্বর্ণ।
ঘরে ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী আছে- রঙ্গিন টিভি, ফ্রিজ, অভেন,ফ্যান ইত্যাদি। আসবাব পত্রের মধ্যে আছে সেট সোফা, ৩টি খাট, ৩টি ষ্টীলের আলমিরা, ২টি সুখেশ, ১সেট ড্রাইনিং টেবিল ইত্যাদি। উনার নিজের নামে কোন জমি নেই। স্ত্রীর নামে আছে কৃষি জমি ১ একর,যৌথ মালিকানাধীন আছে ১০ একর ও অকৃষি আছে ১.৫০ একর।
উনার টিন শেডের ঘর আছে ২টি। মেয়র তোফাজ্জল ইসলাম চৌধুরী পৌর এলাকার চরগাঁও গ্রামের আলহাজ¦ মরহুম তাজুল ইসলাম চৌধুরীর ও আলহাজ¦ সালমা চৌধুরীর ছেলে।অপর দিকে বিএনপির মনোনিত প্রার্থী আলহাজ¦ ছাবির আহমদ চৌধুরী হলফনামায় নিজেকে ব্যবসায়ী বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি আদালতের ৪টি মামলার আসামী, ৩টি মামলা বিচারাধীন একটি অব্যাহতি প্রাপ্ত। পৌর এলাকার উনার ২টি
ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।
শহরের হাই স্কুল রোডে মেসার্স এম.কে চৌধুরী ষ্টোর ও হবিগঞ্জ রোডে মেসার্স চৌধুরী আটো রাইছমিল। এ দুই ব্যাবসা থেকে ছাবির আহমেদের প্রতি বছরের আয় ৪ লক্ষ ৬৬ হাজার ১শত ৯৬ টাকা। কৃষি খাতে আয় ৩০হাজার টাকা। পৌর কাউন্সিলর হিসেবে বার্ষিক সম্মানী ভাতা পান ৬০ হাজার টাকা। অস্থাবর সম্পদ:- হলফনামায় উল্লেখ করেছেন ছাবির আহমদের নগদ টাকা আছে  ২লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। স্ত্রীর আছে ৫০ হাজার টাকা। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে নিজের নামে জমা আছে ৪৭ হাজার ৬শত ১৭ টাকা ও স্ত্রীর নামে আছে ১লক্ষ ৯২ হাজার ২৩ টাকা। নিজের নামে স্বর্ণ আছে ১ ভরি ও স্ত্রীর নামে আছে ১৫ ভরি
এবং নির্ভরশীলের নামে আছে ৩ ভরি। নিজের নামে কোন ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী না থাকলেও স্ত্রীর নামে আছে- ১টি টিভি, ১টি ফ্রিজ, ২টি মোবাইল ফোন।
আসবাবপত্র নিজের নামে আছে ১টি খাট, ১টি সোফা টে, ১টি ডাইনিং টেবিল, ৬টি চেয়ার। স্ত্রীর নামে আছে ১টি খাট, ১টি ড্রেসিং টেবিল, ১টি আলমিরা (উপটৌকন)।
স্থাবর সম্পদ:- কৃষি জমি নিজের নামে আছে ৬১৪ শতক, স্ত্রীর নামে ৭৭.৫০ শতক। অকৃষি নিজের নামে ১২৫০ শতক, স্ত্রীর নামে ১২৭ শতক। কৃষি ব্যাক নবীগঞ্জ শাখায় ছাবির আহমদের একক ্িরণের পরিমান ৩০ লক্ষ ৮হাজার ৯শত ২৫ টাকা। আলহাজ¦ ছাবির আহমদ চৌধুরী নবীগঞ্জ পৌর এলাকার চরগাঁও গ্রামের মো: কবির মিয়া চৌধুরী ও মোছা: এলাছি কবির চৌধুরীর ছেলে।
অপর দিকে, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন লন্ডন প্রবাসী জাহাঙ্গীর রানা। উনার শিক্ষাগত যোগ্যতা বি.এস.সি। নেই কোন মামলার আসামী। তিনি হলফনামায় ব্যবসা/পেশা উল্লেখ করেছেন কৃষি। কৃষি খাতে জাহাঙ্গীর রানার প্রতি বছর আয় দেড় লক্ষ টাকা। নগদ ২লক্ষ টাকা আছে। নিজের একটি মোটরসাইকেল আছে। স্ত্রীর নামে আছে ৬ভরি স্বর্ণ। স্থাবর সম্পদ- যৌথ মালিকানাধীণ আছে ৭একর জমি।
স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহাঙ্গীর রানা পৌর এলাকার রাজাবাদ গ্রামের ম ৃত আব্দুল হেকিম ও ফরিদা খাতুনের ছেলে।
জাতীয় পার্টির মনোনিত প্রার্থী মামমুদ চৌধুরী। তিনি উপজেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব। শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচ.এস.সি। কোন মামলায় আসামী নেই। পেশা উল্লেখ করেছেন কৃষি। কৃষি থেকে প্রতি বছর আয় হয় ১লক্ষ ৯০ হাজার টাকা। নগদ আছে ১লক্ষ টাকা। স্ত্রীর আছে ৫ভরি স্বর্ণ।
মামমুদ চৌধুরী পৌর এলাকার শান্তিপাড়া গ্রামের মৃত সরুজ মিয়া চৌধুরী ও মৃত বেগম খায়রুনেছার ছেলে।
অপরদিকে, স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল জুবায়ের চৌধুরী, তিনি স্বশিক্ষিত। কোন মামলা মোকদ্দমা নেই। নগদ কোন টানা নেই তবে ব্যাংকে আছে ২লক্ষ ১হাজার টাকা। ঢাকা মেট্রো চ- ১৫-১২৭৬ নাম্বারের নোহা গাড়ীর মালিক তিনি। ঘরে আছে একটি টিভি ২ টি মোবাইল। তিনি শান্তি পাড়া এলাকার মৃত আব্দুল রশিদের ছেলে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!