শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

হবিগঞ্জে যত্রতত্র গড়ে উঠেছে ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও ক্লিনিক ॥ নজরদারী নেই প্রশাসনের

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ৩ এপ্রিল, ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রয়োজনীয় ডাক্তার, অবকাঠামোর অভাব এবং নিয়মনীতি ছাড়াই হবিগঞ্জ শহরের যত্রতত্র গড়ে উঠেছে ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার। আর এসব ক্লিনিকে অপচিকিৎসার শিকার হয়ে রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে প্রায়ই। বিভিন্ন অনিয়মের মধ্য দিয়ে ডায়গনষ্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকগুলোতে চিকিৎসা কার্যক্রম চললেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেই কোন নজরদারী। অভিযোগ রয়েছে, সরকার দলীয় প্রভাবশালী কয়েক ব্যক্তি হবিগঞ্জে ডায়গনষ্টিক ও ক্লিনিক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করছেন।
জানা যায়, অনুমোদন নেয়ার সময় কাগজ পত্রে বেসরকারী ডাক্তার, ডিপ্লোমাধারী নার্স ও প্রয়োজনীয় অবকাঠামো দেখানো হলেও প্রকৃত পক্ষে হবিগঞ্জ শহরের ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকে প্রাইভেট ডাক্তার নেই বললেই চলে। যারা আছেন তারা অধিকাংশই কোন না কোন মেডিকেল কলেজের ছাত্র। শুধু মাত্র নাম সর্বস্ব ডাক্তার দিয়েই চলছে ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারগুলো। রোগী আসলেই সদর হাসপাতালের সরকারী ডাক্তারকে ক্লিনিক থেকে ফোন দেয়া হয়। আরও ডাক্তাররাও সব কিছু ফেলে ছুটে আসেন ক্লিনিকে। ডায়াগনিস্ট সেন্টারে রোগ নির্ণয়ের নামেও নেয়া হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা। রোগ নির্নয়ের ব্যয় মিটাতে রীতিমত হাফিয়ে উঠছেন রোগীরা। ডায়াগনষ্টিক সেন্টারগুলোতে বিভিন্ন পরীক্ষার মূল্য তালিকা ঝুলানো থাকার নিয়ম থাকলেও কোন ডায়াগনিস্ট সেন্টারে দেখা মেলেনি এই তালিকা। ইচ্ছা অনুসারে টাকা নিচ্ছে রোগীদেও কাছ থেকে।
একটি সূত্র জানায়, প্যাথলজি সেন্টারে এক্স-রে মেশিন বসানো সরকারি নিয়ম অনুযায়ী বসানো হয়নি। ইসিজিতে রয়েছে অনবিজ্ঞ লোক। তাছাড়া হাসপাতালের নার্সদের ন্যায় কর্মরত সেবিকাদের পোশাক পড়া থাকলেও কারোই নেই কোনো প্রশিক্ষন। উন্নত চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য জেলার বাইরের কিছু নামী দামি চিকিৎসকের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে। প্রকৃত পক্ষে ওই অধিকাংশ ডাক্তার আসেন না। অভিযোগ রয়েছে- কিছু ডাক্তারের নাম পদবী লেখা ব্যবস্থাপত্র ব্যাবহার করেন অন্য ডাক্তার। প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আসা রোগীদের সাথে প্রতারনা করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠান মালিকগন। যত্রতত্র ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও ক্লিনিক গড়ে উঠায় যেমনি সাধারন মানুষ হয়রানির শিকার হচ্ছে ঠিক তেমনি রোগ নির্নয়ের নামে অতিরিক্ত টাকা গুনতে হচ্ছে রোগীদের। বেশ কয়েকজন রোগী জানান, রোগ সাড়াতে যত টাকার ঔষধ না লাগে তার চেয়ে তিনগুন টাকা লাগে ডায়াগনিস্ট সেন্টারে রোগ নির্ণয় করতে। এক ডায়াগনিস্ট সেন্টারের রির্পোট আরেক ডায়াগনিস্ট সেন্টারের রির্পোটের সাথে কোন মিল থাকে না। ফলে রোগীরা ডাক্তারের সঠিক চিকিৎসা না পাওয়ার কারনে রোগীরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে প্রতিনিয়ত।
সরেজমিনে দেখা যায়, শহরের কয়েকটি প্যাথলজিতে অনভিজ্ঞ টেকনিশিয়ান দ্বারা রোগীদের রক্ত পরীক্ষা করা হয়। অভিযোগ রয়েছে প্যাথলজিগুলোতে সরকারিভাবে নির্ধারিত পরীক্ষার মূল্য তালিকা অন্তরালে রেখে তাদের ইচ্ছা অনুযায়ী অতিরিক্ত টাকা নিচ্ছে রোগীদের কাছে থেকে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন রোগী জানান, ডাক্তারদের পছন্দমত ডায়াগনিস্ট সেন্টারে পরীক্ষা না করলে ডাক্তাররা সেই রিপোর্ট ফেলে দেন। তাছাড়া হাসপাতালে রোগী গেলেও ডাক্তাররা বিভিন্ন প্যাথলজির নাম বলে দেন কোথায় থেকে পরীক্ষা করে রিপোর্ট নিয়ে আসতে হবে। ফলে অতিরিক্ত টাকা খরচ করে হিমশিম খেতে হচ্ছে অসহায় রোগীদের। সিভিল সার্জন অফিস থেকে ক্লিনিকগুলো পরিদর্শন করার নিয়ম থাকলেও তা মানা হয় না। এখানেও রয়েছে নানা অনিয়মের কাহিনী। ফলে নিজেদের মত করেই হবিগঞ্জে চলছে ডায়গনষ্টিক ও ক্লিনিক ব্যবসা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!