শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

ঐতিহাসিক তেলিয়াপাড়া চা বাগান স্মৃতিসৌধ পিকনিক স্পট

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৫

Teliapara-2-220x146
হীরেশ ভট্টাচার্য্য হিরোঃ মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে স্মৃতি বিজড়িত হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার তেলিয়াপাড়া চা বাগান স্মৃতি সৌধ এলাকা আর্কষনীয় পিকনিক স্পটে পরিণত হয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ঐতিহাসিক চা বাগান স্মৃতি সৌধ এলাকায় দর্শনার্থীরা এ স্থানটি দেখার জন্য ভিড় করে। ঢাকা সিলেট মহাসড়ক মুক্তিযোদ্ধ চত্বর এলাকা ও তেলিয়াপাড়া রেল ষ্টেশন থেকে ২ কিলোমিটার অভ্যন্তরে এ স্থানটির অবস্থান। সুরমা চা বাগানের ভেতর দিয়ে তেলিয়পাড়া চা বাগান ম্যানেজার বাংলো সংলগ্ন পূর্ব পাশে স্বাধীনতার যুদ্ধ কালীন সময়ের এক অনন্য স্মৃতি ধারণ করে সগৌরবে দাড়িয়ে আছে এই স্মৃতি সৌধ। বর্তমান সরকারের আমলে স্মৃতি সৌধ ও আশপাশ এলাকায় সংস্কার করায় স্মৃতি সৌধটি নতুন রুপ লাভ করেছে। স্মৃতি সৌধের কাছেই নয়নাবিরাম লেক। সবুজ শাপলা ও বাগানের অপূর্ব নৈসর্গিক দৃশ্য সহজেই দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করে। গত ৩ বছর থেকে এ স্থানে দর্শনার্থী ও ভ্রমন পিপাসু পর্যটকরা এ স্থানে পিকনিক করার জন্য প্রতিনিয়ত আসছে। রাইফেলের বুলেট আকৃতির স্মৃতিসৌধের সোনালী রং রোদের উজ্জ্বল আলোতে ঝলমল করে। স্মৃতি সৌধের প্রবেশ পথের দুই পাশে কবি শামসুর রাহমানের ‘স্বাধীনতা তুমি’ কবিতার পঙক্তিমালা লেখা রয়েছে। বেদির পূর্ব পাশে লাগানো ফলকে লেখা রয়েছে ‘শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মরণে স্মৃতিসৌধ’ উদ্বোধন করেন মেজর জেনারেল এম শফিউল্লাহ বীরউত্তম সেনাপ্রধান ৩নং সেক্টর কমান্ডার সন ১৯৭৫ খ্রীষ্টাব্দ। দক্ষিন দিকে লাগানো ফলকে লেখা রয়েছে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ১৯৭১ এ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠন, মুক্তিবাহিনীর আনুষ্ঠানিক ১ম সদর দপ্তর, তেলিয়াপাড়া বাশঁবাড়ি, মাধবপুর। এছাড়া ফলকের ৩৩ জনের নামের তালিকা রয়েছে রাজনৈতিক নেতা সাবেক সেনা ও সরকারী কর্মকর্তা এবং মুক্তিযোদ্ধাদের নাম। এরমধ্যে রয়েছে ১ম সেনা প্রধান কর্ণেল আতাউল গণি ওসমানী, সহ সেনাপ্রধান লেঃ কর্ণেল আব্দুর রব এম,এস,এ, মেজর কেএম সফিউল্লাহ(সিলেট ব্রাহ্মণবাড়ীয়া) , মেজর খালেদ মোশাররফ (কুমিল্লা নোয়াখালী), মেজর জিয়াউর রহমান (চট্টগ্রাম ও পার্বত্য চট্টগ্রাম), মেজর আবু ওসমান চৌধুরীর (কুষ্টিয়া যশোহর পশ্চিম রণাঙ্গন ) নাম। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর ৩নং সেক্টর কমান্ডার মেজর কেএম শফিউল্লাহ তেলিয়াপাড়া চা বাগানে তার হেড কোয়ার্টার স্থাপন করেন। ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ এবং সড়ক ও রেল পথে বৃহত্তর সিলেটে প্রবেশের ক্ষেত্রে মাধবপুর উপজেলার তেলিয়াপাড়ার গুরুত্ব ছিল অপরিসীম। এখান থেকে মুক্তিবাহিনীর বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করা ছাড়াও চা বাগানে মুক্তিযোদ্ধাদের একটি বড় প্রশিক্ষন ক্যাম্প গড়ে উঠে। মুক্তিযোদ্ধের সময় ম্যানেজার বাংলো সহ পাশ্ববর্তী এলাকা ছিল মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধাদের পদচারণায় ছিল মুখরিত। বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও তেলিয়াপাড়া চা বাগান কর্তৃপক্ষ এই স্মৃতিসৌধ রক্ষনাবেক্ষন করছে। এ স্থানটি দর্শনার্থীদের নিকট খুবই আকর্ষনীয় ও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে স্মৃতিসৌধ এলাকায় সংস্কারের কাজ করা হয়েছে। এলাকাবাসীর দাবি ঐতিহাসিক তেলিয়াপাড়া চা বাগানের ডাক বাংলোটি মুক্তিযোদ্ধের জাদুঘর হিসেবে রুপান্তিত করার। কিন্তু কয়েক যুগ পার হয়ে গেলেও আজও তা জাদুঘরে রুপ নেয়নি। এতে করে মুক্তিযোদ্ধা সহ স্থানীয় বাসিন্দাদের মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!