মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০৪ অপরাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

রাজ্য ছেড়ে রাজা মিয়া চলে গেলেন না ফেরার রাজ্যে

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: বুধবার, ১২ এপ্রিল, ২০১৭

ফখরুল আলম ॥ শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার ১ম নির্বাচিত পৌর চেয়ারম্যান আব্দুর রেজ্জাক রাজা মিয়া। পৃথিবীতে কিছু কীর্তিমান ব্যক্তিত্বের জন্ম হয় যারা তাদের মেধা ও সৃজনশীলতায় নিষ্ঠা ও কর্মদক্ষতায় এ সুন্দর পৃথিবীটাকে আরো সুন্দর করে গড়ে তুলত প্রয়াসী হন। তেমনি এক বিরল কৃত্বিতের অধিকারী ছিলেন আব্দুর রেজ্জাক রাজা মিয়া। ছাত্র জীবন থেকেই জনসেবায় সরাসরি অংশগ্রহণ করে জীবনের প্রথম ধাপ থেকেই পর পর ৩ বার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ১ বার শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে যুগ যুগ ধরে জনগণের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছিলেন।

১৯৮৪ সালে সরাসরি জনগণের ভোটে তিনি প্রথম ৮নং শায়েস্তাগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তারপর ১৯৮৮ সালে এবং ১৯৯১ সালে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসাবে জনগণের সেবা করে এসেছেন। ১৯৯৮ সালে শায়েস্তাগঞ্জ যখন পৌরসভায় উন্নীত হল তখন ১৯৯৯ সালে এপ্রিল মাসে পৌরসভার নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হন। রাজা মিয়া শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ বড়চর গ্রামের মরহুম দিদার মাহমুদের ২য় পুত্র। ছাত্র জীবন থেকেই রাজা মিয়া সামাজিক ও সাংগঠনিক কর্মকান্ডের অনুরাগী ছিলেন।

১৯৬৫ সালে বাংলাদেশে আওয়ামীলীগে যোগদানের মাধ্যমে তার রাজনৈতিক জীবনের সুচনা করেছেন। স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তিনি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে একজন সংগঠক হিসাবে কাজ করেন এবং মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। তার চিন্তা চেতনা সমাজের খেটে খাওয়া মানুষের ভাগ্য উন্নয়ন, সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ গঠন সহ গরীব দুঃখী মানুষকে নিয়েই বেঁচে থাকাই ছিল তার মুল লক্ষ্য। সৃজনশীল কাজের প্রতি তিনি ছিলেন নিবেদিত প্রাণ।

তাঁর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন আর সমাজসেবা মূলক উন্নয়ন কর্মকান্ডের একযুগের ও বেশী সময় আমি ছিলাম নিত্য সঙ্গী। পৌরসভার চেয়ারম্যান থাকা কালিন সময়ে ৩ বার সাবেক অর্থমন্ত্রি শাহ এম এস কিবরিয়া সাহেবের বাসা ও মন্ত্রনালয়ে তিনি আমাকে নিয়েই গিয়েছিলেন। একজন সাংবাদিক হিসেবেই নয় ছোট ভাই হিসেবে স্মেহ মায়া মমতা করেছিলেন খুব কাছে থেকে। কিন্তু সেই নন্দিত মানুষটি যখন আমাদের কাঁদিয়ে চলে গেলেন ঠিক তখনই সুদুর প্রবাস থেকে আমার হৃদয়পটে বার বার ভেসে উঠছে উনার কর্মময় জীবনের নানান দিক। কিংবদন্তি রাজা মিয়া শুধু হবিগঞ্জের মানুষের কাছে পরিচিত ছিলেন না। সিলেট সহ সারা দেশের মানুষই এক নামে জানতো রাজা মিয়া কে। তিনি ছিলেন স্বাধীনতা আন্দোলনের বীর পুরুষ। শায়েস্তাগঞ্জ তথা হবিগঞ্জের উন্নয়নের অগ্রগতির মহানায়ক। তিনি শায়েস্তাগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বেশ কয়েকবার বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন সহ শায়েস্তাগঞ্জ সঙ্গীত বিদ্যালয় এবং শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। শায়েস্তাগঞ্জ কামিল মাদ্রাসা, কুতুবের চক ঈদগাঁ সহ মসজিদ মাদ্রাসা সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্টানের দায়িত্ব পালল করেছিলেন।

জনস¤ু§খে আমাকে সব সময়ই ছোট্ট ভাই হিসেবেই পরিচয় করিয়ে দিতেন। জনগনও জানতো অনেকই তিনি আমার আপন ভাই। চাচাতো ভাই হিসেবে খুব কম মানুষই জানতো। মানুষের ভালবাসাই ছিল মরহুম রাজা মিয়ার একমাত্র তাঁরা সেরা উপহার।

জনকল্যাণমুখী কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর আর্দশকতার নক্ষত্রপুরুষ ছিলেন তিনি। তাঁকে হারিয়ে আজ আমরা বেদনাবিহ্বল, মর্মাহত, শোকাহত।

রাজা মিয়াকে হারিয়ে আমাদের সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অনুপস্থিতির বড় দু:সহ এক শুন্যতা অনুভব করছি। তাঁর দক্ষতা ও বিচক্ষণতায় শায়েস্তাগঞ্জ তথা দক্ষিন হবিগঞ্জের উন্নয়নের সহায়তা হয়েছিল। কৈশোর জীবন থেকেই রাজা মিয়ার মন-মানুসিকতার পরিমার্জিত লক্ষ্যে করা যায়। সেই থেকেই সৃজনশীল কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত করে প্রতিটি আনন্দোলন সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন। তাঁর সংস্পর্শে থেকে আমি আমার জীবনে যা শিখেছি তার একটি দিক হলো সাদা কে সাদা বলা এবং কালো কে কালো বলা। যা আমার সাংবাদিকতা জীবনের এক অনন্য শিক্ষা। সুশিক্ষার মধ্যে দিয়ে আজীবন তিনি সেবা করে গেছেন কমিউনিটির। তাঁর স্বপ্ন ছিল তাঁর রাজ্যে হবে সন্ত্রাস মুক্ত সু প্রতিষ্টিত অনন্য একটি রাজ্যে। কিন্তু ব্যক্তি জীবনের ৭৬ বছরে তিনি কত টুকু দিতে পেরেছেন শায়েস্তাগঞ্জবাসীকে !! অবশেষে সেই কিংবদন্তি মরহুম রাজা মিয়ার আতœার শান্তিু কামনা করছি যেন মহান আল্লাহপাক উনাকে বেহেস্তের সর্বোচ্চ স্থানে রাখেন।

লেখক:
ফখরুল আলম
সাধারণ সম্পাদক, লিভারপুল বাংলা প্রেসক্লাব ইউ.কে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!