রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

মাধবপুরে বিজিবির সোর্স শহীদকে ফাঁসাতে গিয়ে, নিজের ফেঁসে গেলেন মাদক পাচারকারী সামাদ

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ৬ জুন, ২০১৫

2456
হামিদুর রহমান মাধবপুর থেকে ॥ হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার বহরা ইউনিয়নের শ্রীধরপুর গ্রামের ওয়াহেদ মিয়ার ছেলে সিএনজি চালক ও বিজিবি’র সোর্স শহিদ মিয়াকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন সামাদ মিয়া নামে এক মাদক পাচারকারী।

পুলিশ,বিজিবি ও ধৃত সামাদ জানায়-দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার শ্রীধরপুর গ্রামের ওয়াহেদ মিয়ার ছেলে সিএনজি চালক শহিদ মিয়া বিজিবি’র সোর্স হিসাবে মাদক পাচারকারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন তথ্য দিতেন। এবং তার তথ্যের উপর ভিত্তি করে বিজিবি মাদকের কয়েকটি বিশাল চালান আটক করে। ফলে ওই এলাকার মাদক পাচারকারীরা তার উপর ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে। ফন্দি আটকে মাদক দিয়ে তাকে পুলিশে ধরিয়ে দিবে।

পরিকল্পনা মোতাবেক র্দূলভপুর গ্রামের আব্দুল ওয়াহাবের ছেলে মাদক পাচারকারী শামীম মিয়া (২৪) একই গ্রামের মিলন মিয়ার ছেলে সামাদ মিয়া (৩২) লাল মিয়ার ছেলে কামাল মিয়া (৩৫) ও তার ভাই ছোট্রন মিয়া (২৮) বুধবার রাতে ভারত থেকে ৯১পিছ ইয়াবা কিনে আনে এবং ভোররাতে কৌশলে শহিদের সিএনজির বামপাশের সাইট লাইটের কভারের ভেতর ওই ইয়াবা রেখে তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাড়িঁর ইনচার্জ এস.আই.শহিদুল্লাহকে খবর দেয় ওই সিএনজিতে ইয়াবা আছে।

খবর পেয়ে পুলিশ হরষপুর-নোয়াহাটি রাস্তার শিবনা ব্রীজ এলাকায় শহিদ মিয়াকে আটক করে সিএনজি তল্লাশী করে ইয়াবা উদ্ধার করে। খবর যায় বিজিবি ৫৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল সাজ্জাদ হোসেনের কাছে, তিনি বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখার জন্য পুলিশ প্রশাসন ও সাংবাদিকদের অনুরোধ জানান।

অপর দিকে পুলিশকে তথ্যদাতা ও বিজিবি সোর্স শহিদকে ফাঁসানোর মূল পরিকল্পনাকারীদের হোতা সামাদ মিয়াকে বিজিবি মনতলা বিওপির সুবেদার মেছবাহুর রহমানের নেতৃত্বে একদল বিজিবি সদস্য দুপুর দেড়টার দিকে মনতলা তেমুনিয়া এলাকা থেকে আটক করে ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এ পরিকল্পনা ও শহিদকে ফাঁসানোর কথা স্বীকার করে।পরে বিজিবি সামাদের কল লিস্ট পরীক্ষা করে দেখে সামাদ ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।

পরে বিজিবি সামাদ কে তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাড়িতে সোপর্দ করলে পুলিশ ইয়াবা নাটকের রহস্য উদঘাটন করে। সামাদের কল রেকর্ডে পাওয়া যায় সামাদের সঙ্গে শহীদের দ্বন্দ ছিল। যার ফলে অন্যান্য পরিকল্পনাকারীদের যোগসাজসে সামাদ দূর্লভপুর গ্রামের ওয়াহাব মিয়ার ছেলে শামীম মিয়াকে দিয়ে শহীদের গাড়ীতে ইয়াবা রাখে। পরে পুলিশ কে খবর দিলে পুলিশ শহীদের গাড়ী থেকে ইয়াবা উদ্ধার করে। এ নিয়ে পুরো উপজেলায় আলোচনা ঝড় বইছে।বিজিবি ৫৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃকর্ণেল সাজ্জাদ হোসেন বলেন, সামাদ কে আটক করার পর আসল রহস্য বেড়িয়ে আসে। সামাদ প্রকাশ্যে সবার সামনে শহীদের গাড়ীতে ইয়াবা রাখার কথা স্বীকার করেছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!