সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৬:৩৮ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

আলো ছড়াচ্ছে নূরপুরে কালা মিয়ার ডেইরি ফার্ম

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৫

kala miya farmনিজস্ব প্রতিবেদক :   এলাকায় আলো ছড়াচ্ছে কালা মিয়ার ডেইরি ফার্ম। কালা মিয়ার আসল নাম আব্দুর রহমান। এলাকাবাসী জানে কালা মিয়া নামে। তার ডেইরি ফার্মে প্রতিদিন দেড় থেকে দুইশ লিটার দুধ উৎপাদন হচ্ছে।

 

কাজে লাগাচ্ছেন গরুর মলমূত্রও। হচ্ছে বায়োগ্যাস, হচ্ছে জৈব সার। ডেইরি ফার্মের পাশাপাশি কৃষি কাজে জড়িত তিনি। নিজের চাষবাসেই কাজে লাগাচ্ছেন জৈব সার। আবার বায়োগ্যাসে নিজের জ্বালানী চাহিদা মেটাচ্ছেন। পরিস্কার পরিছন্নভাবে ফার্ম পরিচালনা করে মাসিক লাখ টাকার উপরে রোজগার করছেন। তার ডেইরি ফার্মে কাজ করে কয়েকটি পরিবারের জীবিকা নির্বাহ হচ্ছে। তার ফার্ম থেকে দুধ দিয়ে চলছে অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও।

 

কালা মিয়ার ডেইরি ফার্ম হবিগঞ্জ সদর উপজেলার শায়েস্তাগঞ্জ নূরপুর ইউনিয়নের নছরতপুর গ্রামে। নছরতপুরে সবার মনেই আলো ছড়াচ্ছে তার ডেইরি ফার্ম। তার সফলতা দেখে অনেকেই ডেইরি ফার্মে উদ্বুদ্ধ হচ্ছেন।

 

২০১১ সালের প্রথম দিকে কয়েকটি গাভী গরু নিয়ে ফার্মটি চালু করেন। শুরু থেকেই সফলতা আসতে থাকে। প্রথমে তিনি শুধুমাত্র দুধ বিক্রি করে আসছেন। এরপর তিনি গরুর মলমূত্র ব্যবহার করে বায়ো গ্যাস তৈরির মেশিন ক্রয় করেন। এরই মধ্যে শুরু করেন জৈব সার উৎপাদন। এসব বিক্রি করে ভালই আয় হচ্ছে তার।

 

 

 

কালা মিয়া বলেন, ‘বেকার থাকা আমার পছন্দ নয়। অন্যকে বেকার থাকতে দেখলে মন ভাল থাকে না। তাই ডেইরি ফার্ম  আরো এগিয়ে নিয়ে বেকার লোকের কর্মস্থল করে দিতে চাই।’

 

তিনি বলেন, ‘আমি মেশিন ক্রয় করে পরিবেশ সম্মতভাবে বায়োগ্যাস আর সার উৎপাদন করতে পারছি। বায়োগ্যাস চালু হওয়ায় জ্বালানী কাঠ সাশ্রয় হয়েছে। প্রতিদিন বায়োগ্যাস ট্যাঙ্কে গরুর দেড়শ কেজি মলমূত্র দিতে হয়। এতে করে বর্তমানে ১০টি পরিবারের জ্বালানী চাহিদার সমস্যা সমাধান হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে এলাকার সব বাড়িতেই আমি বায়োগ্যাস পৌঁছে দিতে চাই।’

 

পরিদর্শনকালে দেখা যায়, নিজ বসতভিটার সামনে একটি ঘর নির্মাণ করে তিনি ডেইরি ফার্মটি গড়ে তুলেছেন। এ ঘরে বর্তমানে ২৫টি গাভী গরু রয়েছে। সকাল বিকাল তিনি গাভী থেকে দুধ সংগ্রহ করে বিক্রি জন্য বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে প্রেরণ করছেন। আর এ ঘরের সামনেই বায়োগ্যাসের ট্যাঙ্ক রয়েছে। এতে গ্যাস সৃষ্টি হয়ে পাইপের মাধ্যমে প্রত্যেকটি চুলায় চলে যাচ্ছে। এসব গ্যাসের চুলায় বসে নারীরা রান্নার কাজ সেরে নিচ্ছেন।

kala miah gas line

এদিকে শ্রমিকরা গ্যাসের ট্রাঙ্কের পরিত্যক্ত মলমূত্র দিয়ে তৈরি করছে জৈব সার।  আর সার জমিতে প্রয়োগ করে অধিক ফলনের আশায় কৃষকরা ক্রয় করে নিয়ে যাচ্ছেন। আর কালা মিয়া এসব সার ও দুধ  বিক্রি করে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন।

 

জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ জানায়, কালা মিয়ার মতো আরো কয়েকজন হলে এলাকায় বেকার সমস্যা দূর হয়ে যেত। আর উৎপাদনমুখী কাজে যোগদান করে বেকাররা আর্থিকভাবে অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারতেন। প্রত্যেক এলাকায় কালা মিয়া অনুকরণীয় হতে পারেন। তাকে সার্বিকভাবে সহযোগীতা করতে প্রাণিবিভাগ প্রস্তুত।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!