সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৪:০১ অপরাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

হবিগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসের সামনে থেকে বাবুল নামে এক দালালকে আটক করেছে পুলিশ

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৫

৭৩৬স্টাফ রিপোর্টার ॥ অনিয়ম আর দূর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে হবিগঞ্জের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস। এতে নির্ভেজালভাবে পাসপোর্ট করার কথা থাকলেও দালাল আর ঘুষ ছাড়া কোন কাজ হচ্ছে না।

 

 

বৃহস্পতিবার দুপুরে পাসপোর্ট অফিসের সামনে থেকে বাবুল আকতার (৩৫) নামের এক দালালকে আটক করেছে পুলিশ। সে বানিয়াচং উপজেলার যাত্রাপাশা গ্রামের ওয়াহাব আলীর পুত্র। সে দীর্ঘদিন ধরে শহরের ২নং পুল এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে পাসপোর্ট অফিসের অসাধু কর্মকর্তাদের ছত্রছায়ায় দালালীর সাথে জড়িয়ে পড়ে।

 

 

বিষয়টি ডিবি পুলিশের নজরে আসলে এসআই সুদ্বিপ রায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে দালালরা গ্রামগঞ্জ থেকে আসা সহজ সরল মানুষের কাছ থেকে পাসপোর্ট করিয়ে দেয়ার নামে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। তাদের খপ্পরে অনেকে নিঃস্ব হচ্ছেন। এদিকে আটক বাবুল সাংবাদিকদের জানায়, সংশিষ্টদের কমিশন দিয়েই পাসপোর্ট করতে আসা লোকদের সহায়তা করছি। এটি দালালী নয়। পুলিশকে কমিশন না দিলেই পুলিশ দালাল ধরার নামে অভিযান চালায়।

 

 

এদিকে গ্রাহকরা অভিযোগ করেন, পাসপোর্ট করতে গিয়ে এ অফিসের কর্মচারী ও কর্মকর্তাদেরকেও প্রদান করতে হচ্ছে ঘুষ। বিভিন্ন অজুহাতে পদে পদে হয়রানির শিকার হচ্ছেন পাসপোর্ট প্রত্যাশিতরা। ঘুষ দিলে সকল অবৈধ কাজ বৈধ হয়ে যাচ্ছে এখানে। কোন কোন ক্ষেত্রে বাসায়ও পৌছেঁ যায় পাসর্পোট। জানা গেছে,ডিজিটাল পদ্ধতিতে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট চালুর পর ঘুষের পরিধিও বৃদ্ধি পেয়েছে এখানে। ১১ দিনের জরুরী পাসপোর্ট এর জন্য নির্ধারিত সরকারী ফি ৬ হাজার টাকার পরিবর্তে ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা আর সাধারণ পাসপোর্ট এর জন্য ৩ হাজার টাকার পরিবর্তে ৪ হাজার থেকে ৬ হাজার টাকা ব্যয় করতে হচ্ছে গ্রাহকদের।

 

 

 

 

ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার রশীদ ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ ফরম জমা দেয়ার সময় ঘুষের টাকা না দিলে নানান অজুহাতে হয়রানি করা হচ্ছে তাদের। কথিত নামধারী সাংবাদিকরাও পাসপোর্ট অফিসে দালালী করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তাদেরকে পাসপোর্ট অফিসে প্রায় সময়ই আঞ্চলিক কার্যালয়ে ঘোরাঘুরি করতে দেখা যায়। এনালগ পদ্ধতি থেকে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট বা ডিজিটাল পাসপোর্ট হওয়ায় দালালের খপ্পরে পড়া আর জনগণের হয়রানির দিন শেষ হওয়ার কথা থাকলেও শেষ হয়নি। উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে জেলা সদরের পাসপোর্ট অফিসে যাওয়ার প্রয়োজন পড়ার কথা না থাকলেও ইউনিয়নগুলোর কতিপয় সচিব পাসপোর্ট আবেদন এবং পাসপোর্ট প্রস্তুতকরণ বাবদ ফিস অনলাইনে জমা না দিয়ে নিজেরা মূল অফিসে নিয়ে আসছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া দালালরা নিজেই সত্যায়িত করে দেয়। তাদের কাছে সরকারি বিভিন্ন কর্মকর্তার নামের নকল সিল রয়েছে বলে জানা গেছে।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক দালাল জানায়, আমরা ফরম পূরণ করে দিয়ে ৫০ বা এক’শ টাকা নেই। আর প্রতি পাসপোর্ট থেকে মোটা অংকের টাকা নিচ্ছেন প্রধান কর্মকর্তা। আমরা টাকা নিলে হয়ে যাই দালাল। আর যারা সরকারী বেতন-ভাতাসহ সব ধরণের সুযোগ সুবিধা ভোগ করা স্বত্তেও এ কাজে জড়িত তাদের কি বলবেন? এসব বন্ধে সংশিষ্ঠ বিভাগের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন,ভূক্তভোগি ও সাধারণ মানুষ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!