সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ০১:১১ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

প্রথমবারের মতো পৌরসভার মেয়র দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হওয়া নির্বাচনে প্রচারণার সময় আজ শেষ

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৫

77747এম এ আই সজিব, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : প্রথমবারের মতো পৌরসভার মেয়র পদে দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হওয়া নির্বাচনে প্রচারণার সময় আজ শেষ হচ্ছে। বিধি অনুযায়ী, ভোটের ৩২ ঘণ্টা আগে প্রার্থীদের সব ধরনের প্রচারণা শেষ করতে হবে। তাই আজ ২৮ ডিসেম্বর (সোমবার) দিবাগত মধ্যরাতে প্রার্থীদের সব ধরনের প্রচারণা বন্ধ করতে হবে।

 

 

সেই সঙ্গে ভোট গ্রহণের শেষের পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টাও কোনো মিছিল-শোডাউন করা যাবে না। এছাড়া গতকাল রবিবার মধ্য রাত থেকে ৩০ ডিসেম্বর রাত ১২ টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। তবে অনুমতি সাপেক্ষে সংবাদপত্র ও আইন শৃংঙ্খলা রক্ষার কাজে ব্যবহৃত গাড়ি চলতে পারে। এছাড়া ২৯ ডিসেম্বর রাত ১২ টা থেকে ৩০ ডিসেম্বর রাত ১২ টা পর্যন্ত সকল প্রকার যানবাহন চলাচল নিষেধ করা হয়েছে। গতকাল জেলা তথ্য অফিস থেকে এ সংক্রান্ত বিধি নিষেধ প্রচারে মাইকিংও করা হয়েছে। এদিকে পৌরসভা নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও অবাধ করতে নির্বাচনী এলাকায় রবিবার (২৭ ডিসেম্বর) মধ্যরাত থেকে মাঠে নামছে বিজিবি (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ)। বিজিবি স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন সূত্র।

 

 

 

 

 

২৮ ডিসেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর সারাদেশের ২২৯ পৌরসভায় চার দিনের জন্য মোট ১০২ পাটুন বিজিবি সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন বলে ইসি সুত্র জানিয়েছে। এ ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যও মোতায়েন থাকবে। ৩০ ডিসেম্বর বুধবার অনুষ্ঠিত হবে পৌরসভার নির্বাচন। সকাল ৮ টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। এ দিন হবিগঞ্জের ৫ পৌরসভায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

 

জানা গেছে, ৫ পৌরসভার ৫৭টি কেন্দ্রের মধ্যে ৫৩টিকেই ঝুঁকিপূর্ণ বলে ঘোষণা করেছে হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসন।

 

হবিগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, হবিগঞ্জ পৌরসভায় ৪৪১২০ জন ভোটার রয়েছেন। ১৮ কেন্দ্রে ভোট কক্ষ রয়েছে ১১৮টি। এ পৌরসভায় মেয়র প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী কেন্দ্রীয় যুবলীগ সদস্য, জেলা যুবলীগ সভাপতি ও রেডক্রিসেন্ট হবিগঞ্জ ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান সেলিম, বিএনপি মনোনিত ধানের শিষ প্রতীকের মেয়র প্রার্থী কিবরিয়া হত্যা মামলার আসামী আলহাজ্ব জি কে গউছ, সতন্ত্র প্রার্থী (নারিকেল গাছ প্রতীকে) মিজানুর রহমান মিজান, ইসলামী শাসনতন্ত্র দলের মনোনিত মেয়র প্রার্থী (হাতপাখা) প্রতীকে মোঃ আব্দুল কাইয়ূম ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মনোনিত মেয়র প্রার্থী (আম) প্রতীকে মোঃ আব্দুল কাদির।

 

 

 

চুনারুঘাট পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ১২১৬৮ জন। ভোট কেন্দ্র ১১। কক্ষ ৩২টি। এ পৌরসভায় বর্তমান মেয়র নাজিম উদ্দিন শামসু (বিএনপি), উপজেলা ছাত্রলীগের সেক্রেটারি মোঃ সাইফুল আলম রুবেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মাধবপুরে ১৩১৬০ জন ভোটার রয়েছে। ৯ ভোট কেন্দ্রে কক্ষ সংখ্যা ৩১টি। এখানে আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী হিসেবে নেতা হীরেন্দ্র লাল সাহা ও পৌর বিএনপি নেতা হাবিবুর রহমান মানিক বিএনপির মেয়র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। শায়েস্তাগঞ্জে ১৫১৯৭ জন ভোটার রয়েছে। ৯ কেন্দ্রে ভোট কক্ষ রয়েছে ৪১টি।

 

 

 

এখানে বিএনপির মেয়র প্রার্থী হিসেবে বিএনপি নেতা ফরিদ আহমদ অলি, আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী হিসেবে শায়েস্তাগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ সালেক মিয়া, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির খালেদা বেগম, সতন্ত্র মেয়র প্রার্থী আতাউর রহমান মাসুক, আব্দুল মজিদ, প্রবাসী আব্দুর রকিব ও প্রভাষক জালাল উদ্দিন রুমি প্রতিদ্বন্দিতা করবেন। নবীগঞ্জে ১৬১৬৫ জন ভোটার রয়েছেন। ১০ ভোট কেন্দ্রে কক্ষ রয়েছে ৫০টি। এ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম চৌধুরী, বিএনপি দলীয় মেয়র প্রার্থী ছাবির আহমদ চৌধুরী। সতন্ত্র প্রার্থী প্রবাসী জাহাঙ্গীর আলম রানা ও প্রবাসী জুবায়ের আহমদ চৌধুরী, জাতীয় পার্টির মাহমুদ চৌধুরী। এ ৫ পৌরসভায় মোট ভোটার হলেন, ১ লাখ ৮১৩ জন। ৫৭টি ভোট কেন্দ্রে ২৭২টি কক্ষে ভোট গ্রহণ হবে। জেলা সহকারি রির্টানিং অফিসার বলেন-“নির্বাচনে কোন প্রকার অনিয়ম করতে দেয়া হবে না। যেকোন মূল্যে এ সব পৌরসভায় অবাধ নিরপেক্ষ গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

 

নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে আমরা কাজ করছি।” তিনি আরও বলেন- “৫ পৌরসভার জন্য পৃথক পৃথক রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ হয়েছেন।

 

মাঠের নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক টিম মোতায়েন রয়েছে। তাই কাউকে নিরাপত্তা নিয়ে ভাবতে হবে না।

 

এদিকে নির্বাচনে সাধারণ কেন্দ্রে ১৯ জন এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ২০ জন ফোর্স রেখে রবিবার পরিপত্র জারি করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ভোটকেন্দ্রে কমপক্ষে পাঁচজন (অস্ত্রসহ) ও ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে কমপক্ষে ছয়জন (অস্ত্রসহ) পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবে বলে জানা গেছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, ভোটার সংখ্যা ১ লাখের অধিক হলে ২ পাটুন এবং যে সব এলাকায় ভোটার সংখ্যা ৫০ হাজারে অধিক সেখানে এক পাটুনের বেশি মোতায়েন থাকবে। এ ছাড়া ১০ হাজার ভোটার হলে এক পাটুনের কম বিজিবি দায়িত্ব পালন করবেন। প্রতি পাটুনে গড়ে ৩০ জন সদস্য দায়িত্ব পালন করেন বলে জানিয়েছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবির সদর দফতরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মুহসীন রেজা। রাত ৮টা এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিজিবি হবিগঞ্জে এসে পৌছেছে। তাদেরকে শহরে টহল দিতে দেখা যায়।

 

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!