শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০১:১৯ অপরাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

আগে জানলে তোরে বিদেশ পাঠাইতাম না

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৪

২৬৫৮৯দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক : ‘ওর বাপে কোনো কাজ করতে পারে না।তাই জমিজমা বিক্রি কইর‌্যা বিদেশে পাঠাইছি। কিন্তু, বিদেশে যাইয়া যে তার এমন অবস্থা অইবো তা কী জানতাম। হুনছি, বাপরে নাকি একটা কইর‌্যা রুটি-কলা খেতে দেয়।

পেশাব-পায়খানার পানি খেতে দেয়। বাপরে, আগে জানলে তোরে বিদেশ পাঠাইতাম না।’

এমন আহাজারি ইরাকের নাজাফে ওই দেশের একটি কোম্পানির গোডাউনে ৭মাস ধরে মানবেতর জীবনযাপন করা বাংলাদেশী শ্রমিক কুষ্টিয়ার রুবেলের মা বানোয়ারা খাতুনের।

রুবেলসহ ১৮০ জন বাংলাদেশী সেখানে মানবেতন জীবনযাপন করছে।

জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনের বুধবার দুপুরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ইরাকে অবস্থানকারী ১৮০ বাংলাদেশীর কীভাবে দিন কাটছে—তার একটি সংক্ষিপ্ত ভিডিও চিত্র তুলে ধরা হয়। ওই ভিডিওচিত্র দেখে বারবার মূর্ছা যাচ্ছিলেন বানোয়ারা খাতুন। তার সঙ্গে অন্যরাও কান্নায় ভেঙে পড়েন এ সময়।

মানবাধিকার সংগঠন রাইটস যশোর, শিক্ষা স্বাস্থ্য উন্নয়ন কার্যক্রম (শিশুক) ও বাংলাদেশ মানবাধিকার সমন্বয় পরিষদ বিপদগ্রস্ত এসব পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।সংবাদ সম্মেলন হলেও এটি পরিণত হয় শোকসভায়।

ছেলের দুঃখ কষ্টের কথা বলতে গিয়ে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার ছোট মাছুয়াগ্রামের জাকিয়া বেগম বলেন, ‘আমি কিছুই চাই না।আমার একমাত্র ছেলেরে ফেরত চাই।ওর শোকে এক মাস আগে বাপটাও মইর‌্যা গেছে। ট্যাকা গেছে যাক, আমার গর্ভের ধনরে আপনারা দ্যাশে আইনা দেন।’

একমাত্র ছেলে রুবেল শাহের জন্য এমন আকুতি জানানোর পরপরই ডায়াস থেকে পড়ে গিয়ে জ্ঞান হারান জাকিয়া বেগম।

শুধু রুবেলের মা জাকিয়া বেগম নয়, ইরাকে বিপদগ্রস্ত ১৮০ বাংলাদেশীর স্বজনদের আহাজারিতে যেন স্তব্ধ হয়ে যায় জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনের সবাই। পড়ে যায় কান্নার রোল।

ঢাকার ক্যারিয়ার ওভারসিসের মাধ্যমে দেশের ৮৭টি উপজেলার ১৮০ জন বাংলাদেশী ইরাকের নাজাফের একটি কোম্পানির অধীনে বন্দির মতো দিন কাটাচ্ছে ৭ মাস ধরে।

তাদের স্বজনদের দাবি ভাল বেতনের কথা বলে ৩ থেকে সাড়ে ৪ লাখ টাকায় কাতারে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ১৮০ জনকে ইরাকে পাচার করে দেওয়া হয়েছে। অসহায় এসব শ্রমিকদের দেশে ফেরত এনে প্রয়োজনীয় ক্ষতিপূরণ কিংবা চুক্তি অনুযায়ী চাকরির ব্যবস্থা করতে সরকার বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

১৮০ বাংলাদেশীর করুণ কাহিনী রাইটস যশোর নামে একটি মানবাধিকার সংগঠনের কাছে লিখিতভাবে তুলে ধরেন ইরাকে অবস্থানরত যশোর শহরের কলেজপাড়ার মৃত রফিকের ছেলে ইঞ্জিনিয়ার মো. সিদ্দিকীর ছোট ভাই মো. জাবেদ।

সংবাদ সম্মেলনে জাবেদ বলেন, ‘এ ঘটনা জানানোর পর থেকেই বিভিন্ন মহল থেকে আমাকে হুমমি-ধমকি দিয়ে আসছে। কিন্তু আমি এতে কোনো ভয় পাই না। আমার ভাইসহ সবাই বলছেন, তারা মায়ের বুকে ফেরত আসবেন।সরকারকে অনুরোধ তাদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আসুন।’

ইরাকে অবস্থানরত ঢাকার নবাবগঞ্জের দশরত মণ্ডলের স্ত্রী মমতা মণ্ডল শিশুসন্তানকে কোলে নিয়ে বক্তব্য দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনি বলেন, ‘জমিজমা বিক্রি কইরা পাঠাইছি। আদমে বলে আমি কী করব? এই যে কোলে বাচ্চা দেখছেন-ওর হার্টের সমস্যা। ট্যাকার অভাবে আমি চিকিৎসা করাইতে পারি না। আপনারা এর ব্যবস্থা করেন।’

সংবাদ সম্মেলনে সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক, রাইটস যশোরের নির্বাহী পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. সিআর আবরার ও বাংলাদেশ মানবাধিকার সমন্বয় পরিষদের সভাপতি এইচএম নোমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা অবিলম্বে ১৮০ বাংলাদেশীকে দেশে ফিরিয়ে এনে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণের দাবি জানান। এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনার পাশাপাশি দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি করেন তারা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!