রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

খোয়াই নদী হবিগঞ্জবাসীর জন্য এখন ও বিপজ্জনক অবস্থায় পৌঁছেছে

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ১৪ জুলাই, ২০১৭

মোঃ রহমত আলী, হবিগঞ্জ থেকে ॥ হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্মকতাগণের উদাসিনতার ফলে শহর ঘেষা বহমান খোয়াই নদী হবিগঞ্জবাসীর জন্য এখন বিপজ্জনক অবস্থায় পৌঁছেছে। খোয়াই বাঁধের উভয় পাড়ে গজিয়ে উঠা অবৈধ স্থাপনা, নদীর তীরে নিক্ষিপ্ত বর্জ্য অপসারণ ও বর্জ্য নিক্ষেপ করা, শহর সংলগ্ন এলাকায় মাইলের পর মাইল নদীর দু’তীর ও নদী অভ্যন্তরে দখল করে গড়ে উঠেছে অসংখ্যক ঘরবাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

দখলবাজদের অবৈধ স্থানার ফলে নদীতে স্থিতি ¯্রােত সৃষ্টি হয়। ফলে সভাবতই পানি উপরের দিকে বৃদ্ধি হতে থাকে। ফলে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাধঁ উপচে পানি নদী থেকে বেড়িয়ে পড়ার আশংকা দেখা দেয়। আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেও সংশ্লিষ্টরা না দেখার ভান করে দৃষ্টি ফিরিয়ে রাখেন। ফলে খোয়াই নদী এখন হবিগঞ্জবাসীর জন্য দুঃখে পরিণত হয়েছে। অবৈধ দখলবাজদের উচ্ছেদ, নদীর অভ্যন্তরীণ অংশের জঙ্গল ও ড্রেজিং করে নদী তার গতি ফিরিয়ে এনে হবিগঞ্জ বাসীর সংকা মুক্ত রাখতে কতৃপক্ষের প্রতি দাবিজানান ভুক্তভোগিরা।

উল্লেখ্য যে, গত ১৯ জুন ভোর থেকেই ভারত থেকে নেমে আসা ঢলে খোয়াই নদীর পানি বৃদ্ধি পেতে থাকে।

ওই দিন সন্ধ্যায় শহরের কামড়াপুর এলাকার বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার গুজব ছড়িয়ে পড়লে শহর ও তীরেবাসীর মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। রাস্তাঘাট, দোকানপাটে থাকা লোকজন দৌড়াদৌড়ি করে নিরাপদ আশ্রয়েরে জন্য। ওইদিন রাতে নদীর পানি এতটাই বৃদ্ধি পায় যে, গরুর বাজার, গোবিন্দপুর, ভাদৈ, শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার গরুর বাজার, চুনারুঘাটের আশ্রাবপুর, গঙানগর, বনগাও,বগাডুবিসহ বিস্তীর্ণ এলাকার বিভিন্ন স্থানে বাঁধ উপচে পানি প্রবেশ করতে থাকে। এছাড়াও কামড়াপুর ব্রিজের দুইপাশে, মাছবাজার,রামপুর, তেতৈয়া, পূর্বভাদৈ, মাছুলিয়া, কলিমনগর, লষ্করপুর ও চুনারুঘাটের বেশকিছু পয়েন্টে নদীর বাধঁ ছুঁইয়ে (লিকেজ) লোকালয়ে পানি প্রবেশ করতে থাকে। সন্ধ্যা রাত থেকেই স্থানীয় লোকজন ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের কর্মীরা খোয়াই বাঁধের দুর্বল ও নিচু অংশগুলো বালির বস্তা ফেলে মেরামত করতে থাকেন। জেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা বিপদ উত্তরণে সাধ্যমত ভূমিকা রাখেন। ২০ জুন বিকাল পর্যন্ত চরম আতঙ্কের মধ্যে সময় কেটেছে খোয়াই বাঁধ সংলগ্ন বসবাসকারী হবিগঞ্জ বাসীর।

ওইদিন বিকেলের পর থেকে নদীর পানি কমতে শুরু করায় মানুষের মনে স্বস্তি ফিরে আসে।

উল্লেখ্য, খায়াই নদী ড্রেজিং না হওয়াতে নদীর তলায় পলি ও বালি জমে জমে স্থানে স্থানে চড়া পড়েছে। দেখা গেছে শহরের সবচেয়ে নিচু স্থানটি থেকেও নদীর তলদেশের সবচেয়ে উঁচু স্থানটি প্রায় ১২/১৫ ফুট উঁচু হয়ে উঠেছে। এতে নদীতে ঘিরে থাকা শহর হয়েছে হুমকির সম্মুখীন আর নদীর অপর পারের গ্রাম ও ফসলি জমিকে সহ্য করতে হচ্ছে ভাঙ্গনের আঘাত। দেখা যায়, প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে অথবা অন্য সময়েও পাহাড়ি ঢলে খোয়াই

ফুলে-ফেঁপে উঠলে হবিগঞ্জের উজানে (চুনারুঘাটের লাকড়িপাড়া ভাটিতে মির্জাপুর-চানপুর- কাশিপুরের) অথবা ভাটিতে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়। আর ভাঙ্গন মানেই হাজার হাজার একর জমির ফসলহানি ও মানুষের দুর্ভোগ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!