মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩২ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

নবীগঞ্জে সিএনজি ষ্ট্যান্ড নিয়ে সংঘটিত সংঘর্ষের মামলার অন্যতম আসামী শিপন গ্রেফতার বেলাল হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগ

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ২২ মে, ২০১৫

PIC 21======1

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ॥

নবীগঞ্জ- আইনগাঁও সড়কের রুদ্রগ্রাম রোডস্থ সিএনজি ষ্ট্যান্ডের দখল-বেদখলকে কেন্দ্র করে দু‘পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ম্যানাজার মুনসর উল্লার দায়েরী মামলার এফআইআর ভুক্ত অন্যতম আসামী শিপন মিয়া (৩৫)কে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে গ্রেফতার করেছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ। ধৃত শিপন মিয়া পৌর এলাকার রাজনগর গ্রামের তালেব আলীর ছেলে। এছাড়া উক্ত শিপন মিয়া নবীগঞ্জে প্রকাশ্যে দিবালোকে চাঞ্চল্যকর বেলাল মিয়া হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত এবং অজ্ঞাতনামা তালিকার সন্দেহভাজন আসামী বলে অভিযোগ করেছেন নিহত বেলাল মিয়ার পিতা ফারুক মিয়া।

উল্লেখ্য, নবীগঞ্জ-আইনগাঁও সড়কের রুদ্রগ্রাম রোডস্থ সিএনজি ষ্ট্যান্ডে দীর্ঘদিন ধরে পৌর এলাকার নোয়াপাড়া গ্রামের ফারুক মিয়া, দুলাল মিয়া ও মাইজগাঁও গ্রামের মনসুর উল্লা গংরা ম্যানাজার হিসেবে দায়িত্বরত থাকা অবস্থায় একই এলাকার মৃত আব্দুল হেকিমের ছেলে সামছু মিয়া ও খনকারীপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ছাত্রদল নেতা রায়েছ চৌধুরী গংরা উক্ত ষ্ট্যান্ড জবর দখলের চেষ্টা করে। ব্যর্থ হয়ে তারা সামছু মিয়ার বাড়ির সামনে ওই সড়কে চলাচলরত সিএনজি গাড়ীতে বাধা দিয়ে আটক করে। এনিয়ে গত ২৫ এপ্রিল দুপুরে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধেঁ। উক্ত সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। উক্ত সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত বেলালের ভাই আহত হেলাল মিয়ার একটি চোখঁ সম্পন্ন নষ্ট হয়ে যায়। এ ঘটনায় সিএনজি ম্যানাজার মনসুর উল্লা বাদী হয়ে ধৃত শিপন মিয়াসহ ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ১০/১৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা নং ৩৫ তারিখ-২৬-০৪-২০১৫ইং জি,আর-১২৭/১৫ দায়ের করে। ওই মামলার অন্যতম আসামী হিসেবে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে ওসমানী রোড থেকে থানার এসআই আবুল কালাম আজাদ’র নেতৃত্বে একদল পুলিশ শিপন মিয়াকে গ্রেফতার করে। এছাড়া উক্ত সংঘর্ষের ঘটনার একদিনের মাথায় ২৬ এপ্রিল শহরের শেরপুর রোডস্থ মাইওয়ান ব্যবসায়ীক প্রতিষ্টানের সামনে দাড়ানো অবস্থায় পুর্বের ঘটনার জেরধরে সামছু ও রায়েছ চৌধুরীর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী বেলাল মিয়া খুন করে। আগের দিন প্রতিপক্ষের হাতে বিএ পরীক্ষার্থী বড় ছেলে হেলালের চোখঁ নষ্ট, পরদিন ওই সন্ত্রাসীদের হাতে ছোট ছেলে বেলাল খুন’র ঘটনায় তাদের পিতা ফারুক মিয়া দিশেহারা হয়ে পড়ে। এদিকে শিপন গ্রেফতারের খবর পেয়ে বেলাল হত্যার বাদী ফারুক মিয়া জানান, তার একটি ছেলের চোখঁ নষ্ট, অপর ছেলে খুন হওয়ায় দিশেহারা থাকায় হত্যা মামলায় শিপনকে আসামী দিতে পারিনি। তবে অজ্ঞাতনামা হিসেবে তাকে ঘটনার পর পরই খোঁেজ বেরিয়েছি। তিনি আরও বলেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে শিপন তার ছেলে হত্যার অজ্ঞাতনামা আসামী হিসেবে সনাক্ত করেছেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই নজরুল ইসলাম জানান, হত্যা মামলার বাদী ফারুক মিয়া তাকে ফোনে শিপনের বিষয়টি জানিয়েছেন। তিনি ঢাকায় ট্রেনিংয়ে থাকায় কিছু বলতে পারছেন না। তবে বিষয়টি যাচাই পুর্বক উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!