মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
হবিগঞ্জ জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টালের মধ্যে অন্যতম ও সংবাদ মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টিকারী গণমাধ্যম দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডট কম-এ জরুরী ভিত্তিতে হবিগঞ্জ,নবীগঞ্জ,শায়েস্তাগঞ্জ,চুনারুঘাট,মাধবপুর,বাহুবল,বানিয়াচং,আজমিরিগঞ্জ,থানার সকল ইউনিয়ন,কলেজ, স্কুল থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীগণ যোগাযোগ করুন নিম্ন ঠিকানায় ইমেইল করার জন্য বলা হলো। Email : shaistaganjnews@gmail.com Phone: 01716439625 & 01740943082 ধন্যবাদ, সম্পাদক দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ

দেউন্দি চা-বাগানে শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার॥ ডিজিএম নির্দেশে ধর্মঘট প্রত্যাহার করে কাজে যোগদান না করলে হাজিরা বন্ধ হয়ে যাবে

দৈনিক শায়েস্তাগঞ্জ ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ২৭ জুন, ২০১৫

hobiganj সৈয়দ আখলাক উদ্দিন মনসুর, শায়েস্তাগঞ্জ থেকে ॥ চুনারুঘাট উপজেলার দেউন্দি চা বাগানের নিরপরাধ ব্যবস্থাপককে প্রত্যাহার, উন্নত চিকিৎসা, ঘর মেরামত, ভাতা বৃদ্ধিসহ ১২ দফা দাবিতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও বাগান ব্যবস্থাপক কোনরূপ পূর্বে বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই ৪ দিন যাবৎ শ্রমিকরা বেআইনি ভাবে ধর্মঘট অব্যাহত রেখেছে। গতকাল শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দিনভর বাগানের অফিসকক্ষে ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ, উপ শ্রম পরিচালক, বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়ন নের্তৃবৃন্দ, বাগান পঞ্চায়েত, জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে উভয় পক্ষের সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সমঝোতা বৈঠক নিরশনের জন্য দেউন্দি কোম্পানীর ম্যানিজিং ডিরেক্টরের প্রতিনিধি ডেপুটি জেনারেল ম্যানাজার শওকত হেলালী, লেবার হাউসের উপ-শ্রম পরিচালক গিয়াস উদ্দিন, বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মাখন লাল কর্মকার, সেক্রেটারী রামভজন কৈরী সহ নেতৃবৃন্দ, বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি বজেন্দ্র সাওতাল ও সেক্রেটারি কার্তিক সাওতাল সহ নেতৃবৃন্দ, পাইকপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ওয়াহেদ আলি মাষ্টার, বাগান ব্যবস্থাপক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ, শায়েস্তাগঞ্জ প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক সাংবাদিক সৈয়দ আখলাক উদ্দিন মনসুর এর উপস্থিতিতে শ্রমিকদের ও ব্যবস্থাপকের বক্তব্য পেশ করেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন পাইকপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ওয়াহেদ আলী মাষ্টার, সাবেক মেম্বার ময়না মিয়া, আইয়ুব আলী, বর্তমান মে¤¦ার খালেক মিয়া, লক্ষি চরণ বাগতী মেম্বার, অর্চনা বাগতী শান্তি গোয়ালা, সুচিলা মাল, রমেশ মেম্বার, সুচিত্র বাউড়ি, পঞ্চায়েত সভাপতি ভজেন্দ সাওতাল, ভ্যলী সেক্রেটারী মনির সংকর বাউরি প্রমুখ। ডিজিএম শওকত হেলালী ও লেবার হাউসের উপ শ্রমপরিচালক গিয়াস উদ্দিন, শ্রমিক ও ব্যবস্থাপকের বকতব্য শুনে শ্রমিকের দ্রাবী দরয়া মেনে মিলেন এবং এই শেষ সময় একবার কোম্পানীর বাগান ব্যবস্থাপক দেউন্দি বাগানেই থেকে আপনার সাথে থেকে ভাল ব্যবহার ও বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা করে দিবে। এর দায়িত্ব ডি জি এম ও শ্রম উপ-পরিচালক জাবিনদার হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন। মানুষের ভুলত্রুটি হয়, এ দৃষ্টিতে ক্ষমা করে দিন এবং ভুলত্রুটির জন্য ৩৭ বছরের অভিজ্ঞতা ব্যবস্থাপক শ্রমিকদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। ব্যবস্থাপক বিষয়ে কিছু হলে কোম্পানির মালিক সেটা দেখবে, কিন্তু শেষ বারের উক্ত ব্যবস্থাপককে সুযোগ দিতে হবে। শ্রমিকদের দাবী দাওয়া সরকারী ভাবে যে ভাবে দেয় সেটাই শ্রমিকরা পাবে। ব্যবস্থাপককে দোষারূপ করা কোন কারন নেই। অন্যান্য কোম্পানীর চেয়ে উক্ত বাগানের শ্রমিকদের সুযোগ সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। বাগান ব্যবস্থাপক রিয়াজ উদ্দিন কোন অপরাধ করে নি। কিন্তু ব্যবস্থাপক হলেন আপনাদের অভিভাবক। কোম্পানী বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই ৪ দিন ধরে বেইনী ভাবে কাজ বন্ধ করে প্রায় ২ কোটি টাকার কাচা চা পাতা নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। এটার দায়-ভার ব্যবস্থাপক নয়। আজ থেকে শ্রমিকরা বাগানে কাজ না করলে সাপ্তাহিক হাজিরা ও রেশন সহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা পাবেনা কোম্পানীর মালিক পক্ষের নির্দেশ। ডিজিএম বলেন বাগান ১ দিন বন্ধ দেওয়া যায়, কিন্তু ৪ দিন যাবত চা বাগান ধর্মঘট করে ক্ষতি সাধন হয়েছে। এধরনের ধর্মঘট কোন বাগানে হয়নি। এটা ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে স্বার্থ হাসিল করার লক্ষ্যে ধর্মঘট পালন করা হয়। ৪ দিন বন্ধে একদিনের হাজিরা দেওয়া হবে। বাকি ৩দিন বন্ধের জন্য প্রত্যেক পরিবার ছুটির দিন কাজ গুলো পুরন করতে হবে। গত ২৩ জুন থেকে ২৭ জুন পর্যন্ত শ্রমিকরা নিরপরাধ ব্যবস্থাপককে অপসারন, লঞ্চিত ও বিভিন্ন দাবি দাওয়া আদায়ের লক্ষ্যে বাগানের কাজ বর্জন করে বাগানের দূর্গা মন্দির সংলগ্ন ধর্মঘট শুরু করেন। এবং দফায় দফায় প্রতিবাদ সভা করে লাঞ্চত করা হয় ব্যবস্থাপককে। বৃহস্পতিবারও ধর্মঘটের চতুর্থ দিনে সকাল থেকে চা শ্রমিকরা মিছিল নিয়ে দূর্গা মন্দির সংলগ্ন নাচঘরে সমবেত হয়। দুপুরে পঞ্চায়েত সভাপতি বজেন্দ্র সাওতালের সভাপতিত্বে ও শ্রমিক ইউনিয়নের লস্করপুর ভ্যালীর সাধারণ সম্পাদক মনিশংকর বাউড়ির পরিচালনায় এক প্রতিবাদ সভা ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক এ প্রতিনিধি কে জানান, সকলে আশা করছিলেন সরকারের উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে বিষয়টির নিষ্পত্তি হবে। এমনিতে প্রচন্ড খরার জন্য উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে, তার উপর শ্রমিক ধর্মঘটে বড় ধরণের আর্থিক ক্ষতি ডেকে আনছে। একটি সূত্র জানায়, ব্রিটেনের দেউন্দি টি এস্টেট কোম্পানির মালিকানাধীন এই বাগানে ১ হাজার ৩৯৪ জন শ্রমিক কর্মরত। সম্প্রতি বাগানের কম্পাউন্ডার নিয়োগে এক চা শ্রমিকের সন্তান অংশ নেয়। তার চাকরি না হওয়ায় বাগানের নিরপরাধ ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ দেখা দেয় চা শ্রমিকদের মাঝে। এরই ধারাবাহিকতায় শুরু হয় আন্দোলন। অবশেষে উক্ত বাগানের শ্রমিকরা ৫ হতে ১০ বৎসরের ভিতর মুসলমান লোকদের কে স্থান দেবেনা বাগানে। এখন শ্রমিকরা শিক্ষা অর্জন করে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে সন্ত্রাসী কার্যকালাপ চালিয়ে যাচ্ছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 shaistaganj.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarshaista41
error: Content is protected !!